ওসমানীর দুই শিক্ষার্থীর ওপর হামলার প্রধান আসামি গ্রেপ্তার

প্রকাশিত: ৬:০২ অপরাহ্ণ, আগস্ট ৪, ২০২২

ওসমানীর দুই শিক্ষার্থীর ওপর হামলার প্রধান আসামি গ্রেপ্তার

নিজস্ব প্রতিবেদক :
সিলেট এমএজি ওসমানী মেডিকেল কলেজের দুই শিক্ষার্থীকে মারধরের মামলায় প্রধান আসামি দিব্য সরকারকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। বুধবার (০৩ আগস্ট) রাত সাড়ে ১২টার দিকে শাহপরাণ থানা এলাকা থেকে তাকে গ্রেপ্তার করা হয়।

 

গ্রেফতার দিব্য সরকার সিলেট নগরীর কাজলশাহ ৫২ নম্বর বাসার রমনীকান্ত সরকারের ছেলে। তিনি মহানগর ছাত্রলীগের কর্মী।

 

বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন সিলেট মহানগর পুলিশের উপ-কমিশনার (উত্তর) আজবাহার আলী শেখ।


।আরও পড়ুন


প্রসঙ্গত, ওসমানী মেডিকেল কলেজের দুই শিক্ষার্থীর ওপর হামলা ও হাসপাতালের এক নারী ইন্টার্ন চিকিৎসকের শ্লীলতাহানির চেষ্টার প্রতিবাদ এবং দোষীদের গ্রেপ্তারের দাবিতে গত সোমবার রাত থেকে সিলেটের প্রধান সরকারি চিকিৎসালয়ে আন্দোলন চলছে। ওই দিন রাতে প্রশাসন ও রাজনৈতিক নেতাদের আশ্বাসে পরদিন মঙ্গলবার দুপুর ২টা পর্যন্ত শিক্ষার্থী ও ইন্টার্ন চিকিৎসকরা আন্দোলন স্থগিত করেন। মঙ্গলবার অনুষ্ঠিত বৈঠকে পুলিশ ও হাসপাতাল প্রশাসন এবং আওয়ামী লীগ নেতাদের সঙ্গে আন্দোলনকারীদের সমঝোতা হয়নি। তাদের অন্যান্য দাবি সংশ্লিষ্টরা মানলেও ঘটনার সঙ্গে সম্পৃক্ত মূল অভিযুক্ত কেউ গ্রেপ্তার না হওয়ায় তারা হাসপাতালের জরুরি সেবা ও হৃদরোগ বিভাগ ছাড়া সকল বিভাগের কার্যক্রম বন্ধ রাখেন।

 

বুধবার সকাল থেকে ওসমানী মেডিকেল কলেজের প্রশাসনিক ভবনে তালা মেরে ক্লাস-পরীক্ষা বর্জন করেন শিক্ষার্থী ও ইন্টার্ন চিকিৎসকরা। পরে তারা বিক্ষোভ করে দুপুর ১টার দিকে মেডিকেল রোড অবরোধ করেন। এ সময় সড়কে তীব্র যানজটের সৃষ্টি হয়। হাসপাতালের মূল ফটকও বন্ধ করে দেন তারা। তবে এক ঘণ্টা পর আন্দোলনকারীরা অবরোধ প্রত্যাহার করে মূল ফটক খুলে দেন। এ সময় কর্মবিরতি ও ক্লাস-পরীক্ষা বর্জন কর্মসূচি অব্যাহত রাখার ঘোষণা দেন তারা।

 

 

এদিকে, বৃহস্পতিবার (০৪ আগস্ট) সিলেট এমএজি ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের সেমিনার রুমে অনুষ্ঠিত সভা শেষে আন্দোলন আগামী এক সপ্তাহের জন্য স্থগিতের ঘোষণা দিয়েছেন হাসপাতালের শিক্ষার্থী ও ইন্টার্ন চিকিৎসকরা।

 

অপরদিকে ওসমানী মেডিকেল কলেজের দুই শিক্ষার্থীর ওপর হামলা ও নারী ইন্টার্ন চিকিৎসকের শ্লীলতাহানির অভিযোগে আটজনকে আসামি করে মঙ্গলবার দুপুরে কোতোয়ালি থানায় দুটি মামলা করা হয়।

 

ওসমানী হাসপাতালের প্রশাসনিক কর্মকর্তা (ভারপ্রাপ্ত) মোহাম্মদ হানিফ এবং ওসমানী মেডিকেল কলেজের পিএ-টু প্রিন্সিপাল ও সচিব (অতিরিক্ত দায়িত্ব) মাহমুদুল রশিদ বাদী হয়ে পৃথক দুটি মামলা করেন।

 

দুই মামলার আসামিরা হলেন- দিব্য, আব্দুল্লাহ, এহসান, মামুন, সাজন, সুজন, সামি ও সাঈদ হাসান রাব্বি। আসামিদের সবাই ছাত্রলীগের রাজনীতির সঙ্গে সম্পৃক্ত বলে জানা গেছে।

 

তাদের মধ্যে সোমবার রাতেই নগরের মুন্সিপাড়ার মৃত রানা আহমদের ছেলে সাঈদ হাসান রাব্বি (২৭) ও কাজলশাহ এলাকার আব্দুল হান্নানের ছেলে এহসান আহমদ (২২)-কে সোমবার রাতে পুলিশ গ্রেপ্তার করে। রাব্বি সিলেট মহানগরীর ৩ নং ওয়ার্ড ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক।


সংবাদটি শেয়ার করুন
  •  

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ

আমাদের ভিজিটর

Flag Counter

WP2Social Auto Publish Powered By : XYZScripts.com