পাকিস্তানে কারখানা ধসে ১৮ জনের মৃত্যু

প্রকাশিত: ৪:০৫ অপরাহ্ণ, নভেম্বর ৫, ২০১৫

পাকিস্তানে কারখানা ধসে ১৮ জনের মৃত্যু
pakistan
সুরমা মেইলঃপাকিস্তানের লাহোরে বুধবার রাতে একটি কারখানা ধসে কমপক্ষে ১৮ জনের মৃত্যু হয়েছে বলে বিবিসি-র অনলাইন প্রতিবেদনে জানানো হয়।ভোর হওয়ার সঙ্গে সঙ্গেই সৈন্য, পুলিশ ও উদ্ধারকর্মীরা ধ্বংসস্তুপের মধ্যে আটকাপড়া আরো ১শ’ লোকের খোঁজে তল্লাশী চালাতে শুরু করে। ৭.৫ মাত্রার একটি ভূমিকম্পে অঞ্চলটি কেঁপে ওঠার দুই সপ্তাহেরও কম সময় পর ধসের ঘটনাটি ঘটল।

পাঞ্জাবের মুখ্যমন্ত্রী শাহ্বাজ শরীফ জানান, ২৬ অক্টোবরের ভূমিকম্পে কারাখানাটির অবকাঠামোতে ক্ষতি হয়েও থাকতে পারে। উদ্ধারকাজে সময় লাগবে। এই মুহূর্তে ধ্বংসস্তুপের মধ্যে প্রবেশ করাই আমাদের লক্ষ্য। আমরা এখনো ধ্বংসস্তুপের মধ্য থেকে মানুষের আর্তনাদ ও সাহায্যের আকুতি শুনতে পাচ্ছি।

ভয়াবহ ওই ভূমিকম্পে পাকিস্তান ও আফগানিস্তানে ৪শ’লোক প্রাণ হারায়।

এই দুর্ঘটনায় হতাহতদের উদ্ধার কার্যক্রমের সমন্বয়কারী লাহোরের প্রধান প্রশাসনিক কর্মকর্তা মোহাম্মদ উসমান জানান, বুধবার ধ্বংসস্তুপের ভেতর থেকে ৭০ জনকে জীবিত উদ্ধার করা হয়েছে। এদের মধ্যে ৫১ জনকে হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

সেনাবাহিনী উদ্ধার তৎপরতায় অংশ নেয়ার জন্য বিশেষায়িত তল্লাশী দল ও প্রকৌশলী পাঠাচ্ছে বলে জানিয়েছে।

লাহোরের মধ্যাঞ্চল থেকে প্রায় ৪৫ কিলোমিটার (৩০মাইল) দক্ষিণ-পশ্চিমে শানদার শিল্প অঞ্চলের চারতলা বিশিষ্ট রাজপুত পলিস্টার পলিথিন ব্যাগ কারখানাটি ধসে পড়ে।

প্রাদেশিক মুখপাত্র জাইম কাদরি জানান, কারখানাটি সরু গলির শেষ মাথায় অবস্থিত হওয়ায় উদ্ধার কর্মীদের সেখানে পৌঁছতে যথেষ্ট বেগ পেতে হচ্ছে। এর ফলে উদ্ধার তৎপরতা মন্থর গতিতে চলছে। স্থানীয় সবকটি হাসপাতালে জরুরি অবস্থা জারি করা হয়েছে।

জিন্নাহ হাসপাতালের প্রধান পরিচালক জিয়া উল্লাহ্ জানান, এই ঘটনায় হতাহতদের অধিকাংশ অল্প বয়সী শ্রমিক। এদের অনেকে মাথাসহ বিভিন্ন অঙ্গে আঘাত পেয়েছে।

একই নগরীতে গত বছর একটি মসজিদ ধসে পড়ে অন্তত ২৪ জন প্রাণ হারায়। এছাড়াও ২০১৪ সালে এখানে ভারী বৃষ্টিপাত ও বন্যার কারণে ছাদ ধসে ২শ’ জনের বেশি লোক মারা যায়।

সংবাদটি শেয়ার করুন
  •  

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ

লাইক দিয়ে পাশে থাকুন

রাফি গার্ডেন সুপার হোস্টেল।

 

আমাদের ভিজিটর
Flag Counter

WP2Social Auto Publish Powered By : XYZScripts.com