সিলেটে ‘বিশ্ব মানসিক স্বাস্থ্য দিবস’ পালিত

প্রকাশিত: ৬:৪১ অপরাহ্ণ, অক্টোবর ১০, ২০১৫

সিলেটে ‘বিশ্ব মানসিক স্বাস্থ্য দিবস’ পালিত

jjjj

সুরমা মেইলঃ আজ ১০ অক্টোবর সিলেটে পালিত হয়েছে বিশ্ব মানসিক স্বাস্থ্য দিবস। এ উপলক্ষ্যে সিলেট এমএজি ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল দিনব্যাপী বিভিন্ন কর্মসূচি পালিত হয়।

কর্মসূচি শুরু হয় সকাল ১০টায় মানসিক স্বাস্থ্য দিবসের র‌্যালির মাধ্যমে। র‌্যালিটি মানসিক স্বাস্থ্য বিভাগ সিলেট ওসমাসী মেডিক্যাল কলেজ (সিওমেক) থেকে শুরু হয়ে ওসমানী মেডিকেল কলেজ প্রদক্ষিণ করে কলেজ ক্যাম্পাসে এসে শেষ হয়। র‌্যালিতে সিওমেক হাসপাতালের শিক্ষকম-লী ও ছাত্র-ছাত্রীরা অংশগ্রহণ করেন।

বাংলাদেশ অ্যাসোসিয়েশন অব সাইকিয়াট্রিস্টস্ সিলেট শাখার জেনারেল সেক্রেটারি ডা. আ.কে.এস রয়েলের উপস্থাপনায় আলোচনা সভায় মূল প্রবন্ধ পাঠ করেন রাগিব রাবেয়া মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের অ্যাসোসিয়েট প্রফেসর ডা. সুস্মিতা রায়। আলোচনা সভায় সভাপতিত্ব করেন বাংলাদেশ অ্যাসোসিয়েশন অব সাইকিয়াট্রিস্টস্ সিলেট শাখার সভাপতি অধ্যাপক ডা. গোপাল শংকর দে এবং প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন- স্বাস্থ্য অধিদপ্তর, ঢাকার পরিচালক (প্রশাসন) ডা. মো. ইহতেশামুল হক চৌধুরী এবং বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন- উপাধ্যক্ষ অধ্যাপক ডা. এন.কে সিন্হা ও  সিলেট বিএমএ সভাপতি অধ্যাপক ডা. মো. রুকন উদ্দিন আহমদ। তাছাড়া বিষয় বিশেষজ্ঞ হিসেবে উপস্থিত ছিলেন- অধ্যাপক ডা. মো. রেজাউল করিম, অধ্যাপক ডা. মো. ইসমাঈল পাটওয়ারী, শিক্ষক সমতিরি সভাপতি ডা. জামিল আহমদ ও মো. সালেহ আহমদ।

আলোচনার মূল বিষয়বস্তু ছিল এবারের মানসিক স্বাস্থ্য দিবসের মূল প্রতিপাদ্য বিষয় “মানসিক স্বাস্থ্যে মর্যাদাবোধ”। বাংলাদেশে প্রতি ১০০ জনে ১৬ জন মানসিক রোগে আক্রান্ত। কিন্তু অত্যন্ত দুঃখজনক ব্যাপার হলো মানসিক রোগীরা মানবাধিকার থেকে বঞ্চিত। তারা শুধু বৈষম্য, কুসংস্কারের বেড়াজালে আক্রান্ত নয় তারা শারীরিক ও মানসিকভাবেও অপদস্ত। এই বছর মানসিক রোগীর মর্যাদা, মানবাধিকার এবং মত প্রকাশ করার অধিকার প্রতিষ্ঠার উপর জোর দিয়েছে।

এ বিষয়ে প্রফেসর ডা. রেজাউল করিম বলেন- পৃথিবীতে বহু দেশে শুধু সাইকিয়াট্রিস্টরাই মানসিক রোগের চিকিৎসা প্রদান করেন না বরং অন্য বিষয়ের বিশেষজ্ঞরাও অনেক মানসিক রোগীর চিকিৎসা প্রদান করেন। তাই মানসিক রোগ সম্পর্কে  সকলরে সম্মক ধারণা থাকা প্রয়োজন।

ডা. মো. ইহতেশামুল হক চৌধুরী দুলাল জীবনের প্রতি ক্ষেত্রে মর্যাদাবোধ প্রদান করার উপর জোর আরোপ করেন। তিনি বলেন- আত্মমর্যাদাবোধের সকলে কাজ করলেই আমরা একসময় মানসিক রোগীকেও মর্যাদা দিতে কুণ্ঠিত হবো না। তিনি ওসমানী মেডিকেলের মানসিক রোগ বিভাগে চিকিৎসক স্বল্পতার ব্যাপারে অতি দ্রুত ব্যবস্থা নিবেন বলে আশ্বাস দেন।

সভাপতির বক্তৃতায় অধ্যাপক ডা. গোপাল শংকর দে তার বলেন- মানসিক রোগীর মর্যাদার সাথে সাথে মানসিক রোগের বিভাগ এবং মানসিক রোগের ডাক্তারদের প্রতি ও মর্যাদা বৃদ্ধি করতে হবে। তিনি আজকের আলোচনায় অংশগ্রহণ ও আলোচনা করার জন্য সবার প্রতি ধন্যবাদ জ্ঞাপন করে অনুষ্ঠানে সমাপ্তি ঘোষণা করেন।

সংবাদটি শেয়ার করুন
  •  

আমাদের ভিজিটর

Flag Counter

WP2Social Auto Publish Powered By : XYZScripts.com